ধামরাইয়ে দুর্ঘটনার শিকার শিক্ষক গোলাম কিবরিয়ার, পা কেটে ফেলা হয়েছে।

0
77

 

মোঃ সিরাজুল ইসলাম (স্টাফ রিপোর্টার)
ঢাকার ধামরাইয়ে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় উপজেলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ গোলাম কিবরিয়ার ডান পা গোরালী থেকে কেটে ফেলা হয়েছে।
গোলাম কিবরিয়া উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের বনেরচর গ্রামের সাবেক শিক্ষক মোঃ ওয়াজ উদ্দীনের ছেলে ও একই এলাকার বীরমুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেনের জামাতা।

গত মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী সকালে মোটরসাইকেলযোগে নিজ কর্মস্থল বিদ্যালয়ে যাওয়ার সময় ধামরাই-ধানতারা আঞ্চলিক সড়কের চন্দ্রপাড়া এলাকায় পৌঁছালে একটি যাত্রীবাহী ম্যাক্সি পরিবহণকে পাশ কাটাতে গেলে বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি সিএনজির সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার ডান পায়ের অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন দেখে তাকে দ্রত ঢাকার সমরিতা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন, পরে ঐ হাসপাতালে তাকে কোন চিকিৎসা সেবা না দিয়েই অর্থোপেডিক (পঙ্গু) হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়।
পথিমধ্য ৩ঘন্টা জ্যামে পড়ে থাকায় পা থেকে প্রচন্ড রক্তক্ষরণ হয়ে ডান পায়ের গোড়ালি নওকল হয়ে যায়। অর্থোপেডিক হাসপাতালে নেয়ার পর তার ওই পায়ের গোড়ালি থেকে কেটে ফেলা হয়।

জলসিন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষ্ক মোঃ বোরহান উদ্দিন জানান আমাদের শিক্ষক নেতা গোলাম কিবরিয়ার এই পরিণতির জন্য আমরা খুবই মর্মাহত ও ব্যাথিত। দুর্ঘটনার খবর পেয়েই আমরা ছুটে যাই তার কাছে। ঢাকা দুটি মেডিকেল ঘুরিয়েও পা টি ঠিক হলোনা, আমাদের চেষ্টার কোন ত্রুটি বা কমতি ছিলনা। তার পা হারিয়ে চিরদিনের জন্য পঙ্গু হয়ে গেল, শুধু পা নয়, তার কাঁধের হার ও পায়ের হার ভেঙে গিয়েছে। আল্লাহর কাছে দোয়া করি আল্লাহ পাক যেন অতিদ্রুত তাকে সুস্থ করে দেন আমিন।