আশুলিয়ায় শিক্ষক হত‍্যার অভিযুক্তের বাবা ৫ দিনের রিমান্ডে,ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসপি!

0
11

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

আশুলিয়ায় ছাত্রের  ক্রিকেট স্ট্যাম্পের আঘাতে শিক্ষক উৎপল কুমার সরকার (৩৫) নিহতের ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থী আশরাফুল ইসলাম জিতুর বাবা উজ্জল হোসেনকে কুষ্টিয়া থেকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার কুষ্টিয়ার কুমারখালী থেকে আটকের পর তাকে আদালতে পাঠালে ঢাকার মুখ্য বিচারিক আদালত তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঘটনার পর আহত শিক্ষকের মৃত্যু হলে অভিযুক্ত আশরাফুল ইসলাম জিতুসহ তার পরিবার আশুলিয়া থেকে পালিয়ে যায়। পরে কুষ্টিয়া থেকে জিতুর বাবা উজ্জ্বল হোসেনকে আটকের পর ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে তাকে ঢাকার মুখ্য বিচারিক আদালতে পাঠানো হয়। পরে তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। মামলার প্রধান আসামি জিতু এখনো পলাতক থাকায় তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশের একাধিক টিম।

আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম কামরুজ্জামান বলেন, অভিযুক্তকে পালাতে সহায়তার কারনেই তার বাবা উজ্জল হোসেনকে মামলার আসামি দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রধান আসামি জিতুকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এর আগে গত ২৫ জুন (শনিবার )আশুলিয়ার চিত্রাশাইল এলাকার হাজী ইউনুস আলী স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক উৎপল কুমারকে ক্রিকেট স্টাম্প দিয়ে প্রকাশ্যে পিটিয়ে আহত করেন দশম শ্রেণির ছাত্র আশরাফুল আলম জিতু। পরে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার ভোরে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের বড় ভাই অসীম কুমার সরকার।

এদিকে মামলার প্রধান আসামি অভিযুক্ত শিক্ষার্থী আশরাফুল ইসলাম জিতুকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বুধবার সকালে সাভার কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।এছারা আশুলিয়ার হাজী ইউনুস আলী স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরাও মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

এই ঘটনার ৫ দিন পরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঢাকার পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ সরদার।এসময় ৫ দিন পরে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের ব‍্যাপারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,পাঁচ দিন আগেতো মারা যায়নি,মারা গেছে দুই দিন হলো।এছারা ঘটনার পরপরেই সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) ও আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।এসময় অভিযুক্ত আসামীর বয়স ১৯ হলেও কেন শিশু বলা হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে,গ্রেপ্তারের পর মেডিকেল চেকআপ করেলেই প্রকৃত বয়স বের হয়ে যাবে বলে সাংবাদিকদের জানান।