রৌমারীতে মা-শিশুকে হত্যার ঘটনায় বিক্ষোভ মিছিল।

0
173

এলাহী শাহরিয়ার নাজিম
রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে গত ২১মে (শনিবার) চাঞ্চল্যকর মা ও ৫মাস বয়সি শিশু হাবিব হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। রোববার সন্ধ্যার দিকে ময়না তদন্ত শেষে নিহত মা ও ছেলের লাশ রৌমারী থানায় পৌঁছলে থানার সামনে বিক্ষোভ করেন বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী। পরে মিছিল নিয়ে উপজেলা শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেন তারা। এতে অংশ নেন নিহতের স্বজনসহ এলাকার পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ। এ সময় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নিহত মা-ছেলের লাশ পুলিশ হেফাজতে নিহত হাফসা আক্তার হারেনার বাবার বাড়ি নতুন বন্দরে পৌছে দেওয়া হয়।

বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেওয়া মনিরুজ্জামান, রিয়াজুল হক, পলাশ আহমেদ, রাইসুল ইসলাম, শিপন আহমেদ ও সাজেদুল ইসলাম নিহত হাফসা আক্তার হারেনার উকিল বাবাকে দায়ি করে বলেন, এ ঘটনার মূল নায়ক নিহত হারেনার উকিল বাবা জাকির হোসেন ওরফে জফিয়ালকে দ্রুত আইনের আওতায় আনলে ঘটনার আসল রহস্য বেড়িয়ে আসবে।

নিহত হারেনার উকিল বাবা জাকির হোসেন ওরফে জফিয়ালকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রৌমারী থানার ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, মিছিল হওয়ার কথা শুনেছি। তাকে (জফিয়াল) আইনের আওতায় আনা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

প্রসঙ্গত, শনিবার (২১ মে) সকালে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের নতুনবন্দর নামক এলাকায় প্রতিবেশীর পুকুরের কিনারায় গলাকাটা মুমূর্ষু অবস্থায় হাফসা আক্তার হারেনা ও পাশের ধান ক্ষেত থেকে গলাকাটা অবস্থায় ৫মাস বয়সের শিশু সন্তান আহসান হাবিবের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে নিহত শিশুর মা হারেনারও মৃত্যু হয়।
নিহত হাফসা আক্তার হারেনা ও শিশু আহসান হাবিব উপজেলার সদর ইউনিয়নের নতুনবন্দর গ্রামের হারুনর রশিদের মেয়ে ও নাতি।
এ ঘটনার পর থেকে হারেনার উকিল বাবা জাকির হোসেন ওরফে জফিয়াল পলাতক রয়েছেন।