শৈলকুপা উপজেলা চেয়ারম্যান শেফালী বেগমের মৃত্যু,দাফন সম্পন্ন।

0
44

মোঃজাকির হোসেন

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি:

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শিকদার শেফালী বেগম ইন্তেকাল করিয়াছেন(ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। রোববার(১৫ মে) রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, রোববার রাতে নিজ বাড়িতে হঠাৎ বুকে ব্যাথা অনুভব করেন তিনি। পরে তাকে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কুষ্টিয়া নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান প্রয়াত মোশাররফ হোসেন সোনা শিকদার এর সহধর্মিণী।

গত ২০২০ সালের ৪ নভেম্বর শৈলকুপা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় শিকদার সোনা মৃত্যুবরণ করেন। উপনির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়ে তিনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

শেফালী বেগম ২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারী উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে বিজয়ী লাভের মধ্য দিয়ে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

সোমবার(১৬ মে) সকাল ১১টায় তার প্রথম জানাজা শৈলকূপা সরকারী ডিগ্রি কলেজ মাঠে সম্পন্ন হয়।

এসময় ঝিনাইদহ-১(শৈলকূপা) আসনের এমপি আব্দুল হাই, ঝিনাইদহ সাবেক পৌর মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক এম হাকিম আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, শৈলকূপা উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক মতিয়ার রহমান, যুগ্ম আহবায়ক সরোয়ার জাহান বাদশা, মোস্তফা আরিফ রেজা মন্নু, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নায়েব আলী জোয়ার্দার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতিমা লিজা, ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুন্নবী কালু, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শামীম হোসেন মোল্লা, থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম, এমপি পুত্র জিসান তানভীর, মরহুমার পুত্র এসপি শিকদার টুকু, ইউপি চেয়ারম্যান শিকদার কামরুজ্জামান জিকু, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক শিকদার ওয়াহিদুজ্জামান ইকুসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়নে চেয়ারম্যানবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার শত শত মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

মৃত্যুকালে শেফালী বেগম ছেলে মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। দুপুর ১টায় মরহুমের গ্রামে বাড়ি হাকিমপুর ইউনিয়নের নলখোলা গ্রামে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার স্বামীর কবরের পাশে দাফন সম্পন্ন করা হয়।