নির্ভীক সাংবাদিক রাহাদ সুমন লেখনীতে যার আলোর বিচ্ছুরণ।

0
6

বানারীপাড়া(বরিশাল)প্রতিনিধি॥

বরিশালের বানারীপাড়া ইতিহাস-ঐতিহ্য ও জ্ঞানী-গুনীর চারনভূমির এক সমৃদ্ধ জনপদ। শেরেবাংলার স্মৃতিধণ্য পূণ্য ভূমির এ জনপদকে আরো সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিতে লেখনীর মাধ্যমে যিনি সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি আমাদের অতি পরিচিত মুখ নির্ভীক সাংবাদিক রাহাদ সুমন। কলমই তার একমাত্র সঙ্গী। সাংবাদিকতাই তার ধ্যান,মন,জ্ঞান,নেশা ও  পেশা। তার অনুসন্ধানী রিপোর্টে সারাদেশে ভাইরাল হয়েছে রাজশাহী মেডিক্যালে চান্স পাওয়া রিকশাচালক মিজানুর রহমানের মেয়ে অদম্য মেধাবী সাদিয়া ইসলাম হারিছাসহ বহু অদম্য মেধাবী শিক্ষার্থী ও জয়িতারা। এদের নিয়ে তার অনুসন্ধানী মানবিক লেখা পড়ে দেশের শীর্ষ স্থানীয় শিল্প পরিবার বসুন্ধরা গ্রুপসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান লেখাপড়াসহ সার্বিক দায়িত্ব নিয়েছেন।
সাংবাদিকতার এ পিচ্ছিল- কণ্টক পথে হাঁটতে গিয়ে বহু হামলা-মামলার শিকার হয়েছেন তিনি। রাহাদ সুমন তার ক্ষুরধার লেখনীর মাধ্যমে সন্ত্রাস,মাদক, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও দুর্নীতির মূলোৎপাটন করে অপরাধীদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্কে পরিণত হয়েছেন। পেয়েছেন মানবাধিকার পদকসহ বহু পুরস্কার ও সম্মাননাও। বানারীপাড়া প্রেসক্লাবের প্রায় দেড় যুগ ধরে সভাপতির দায়িত্ব পালন করা বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অধিকারী রাহাদ সুমন জাতীয় দৈনিক আজকের কাগজ, ইত্তেফাক,যুগান্তর, সমকাল,সময়ের আলো ও কালের কণ্ঠসহ বহু জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক ও মাসিক পত্রিকার রিপোর্টার হিসেবে কাজ করে পাঠকদের কাছে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন। এক সময়ে একুশে পদকপ্রাপ্ত দেশবরেণ্য সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের স্নেহভাজন এবং সিনিয়র সাংবাদিক ও কলামিস্ট  সোহেল সানির  আপন সহোদর  রাহাদ সুমন সাংবাদিকতার পাশাপাশি শিক্ষানুরাগী হিসেবেও ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। তিনি শতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী বানারীপাড়া মডেল ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সদস্য,দক্ষিণ নাজিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি ও বানারীপাড়া ডিগ্রি কলেজের গভর্নি বডির সদস্য ও জাতীয় শ্রেষ্ঠ পুরস্কারপ্রাপ্ত বানারীপাড়া বন্দর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  তিন বারের নির্বাচিত সভাপতি। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একাধিকবার সদস্য ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করাকালীন  প্রতিষ্ঠানের উন্নতিকল্পে তিনি লেখনীর মাধ্যমে বহু সরকারি বরাদ্দ পাইয়ে দিয়ে অবকাঠামো উন্নয়নসহ সার্বিক সমস্যা নিরসন করেছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বানারীপাড়া উপজেলা শিক্ষা কমিটির সদস্য পদে আসীন রয়েছেন। এছাড়া বানারীপাড়া সিরাতুন্নবী আদর্শ হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা এবং চাখার দরবার শরীফ জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক তিনি। তিনি বানারীপাড়া পৌর শহরের ২নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত তার নিজ জন্মভূমি এক সময়ের দক্ষিণ নাজিরপুর গ্রামটি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়া এবং পরবর্তীতে জেগে ওঠা চর ভূমিদস্যূদের কাছে থেকে উদ্ধার করতে গড়ে তোলেন “দক্ষিণ নাজিরপুর গ্রাম রক্ষা ও উন্নয়ন কমিটি” তিনি তার প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমানে সভাপতি। একজন দক্ষ রাজনীতিবিদ হিসেবেও তিনি সুনাম কুড়িয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী  আদর্শের সৈনিক রাহাদ সুমন দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তিনি বানারীপাড়া পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি। ছাত্রজীবনে তিনি ঢাকার খিলগাঁও মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে  ছাত্রলীগ নেতা ছিলেন। মেধাবী সাংবাদিকতার পথিকৃৎ রাহাদ সুমন একজন জনপ্রিয় উপস্থাপক ও তুখোড় বক্তা। সম্মোহনী ও উদার ব্যক্তিত্বের অধিকারী সুদর্শন, সদালাপী ও মিষ্টভাষী সাংবাদিক রাহাদ সুমন সহজেই মানুষকে একান্ত আপন করে নিতে পারেন। রাহাদ সুমন ১৯৭৯ সালের ১৫ জুলাই বানারীপাড়া পৌর শহরের ২নং ওয়ার্ডে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি বানারীপাড়া বন্দর বাজারের সাবেক প্রতিষ্ঠিত ও স্বনামধন্য ব্যবসায়ী আ. মালেক মিয়া ও গৃহিণী আছিয়া মালেকের সেজ ছেলে। তারা ৪ ভাই ও ৫ বোন। সবাই সুশিক্ষিত ও সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিতি। তার ছোট ভাই নাসির আহম্মেদ রুবেল এ´িম ব্যাংকের বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক। তারণ্যদীপ্ত রাহাদ সুমন এত অল্প বয়সে যে জনপ্রিয়তা ও সুখ্যাতি অর্জন করেছেন তা বানারীপাড়ায় বিরল ঘটনা। অন্যায়,অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে তার গর্জে ওঠা কলম বার বার প্রমান করেছে ‘অসির চেয়ে মসি’ বড়।