ধামরাইয়ে পালকপুত্রের রডের আঘাতে বাবা নিহত, আটক ২।

0
21

 

মোঃ সিরাজুল ইসলাম ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি” ধামরাইয়ে জমিজমা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে, পালক ছেলের শাবলের আঘাতে দেওয়ান দেলোয়ার হোসেন দিদার (৬৮) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ওই পালক ছেলে ও ছেলের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে ধামরাই থানা পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার (০৫ মে) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার কুশুরা ইউনিয়নের বান্নল গ্রামের বোচার বাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত দেওয়ান দেলোয়ার হোসেন দিদার ধামরাইয়ের কুশুরা ইউনিয়নের বান্নল বোচার বাড়ি এলাকার বাসিন্দা। আটকরা হলেন, নিহতের পালক ছেলে সোহেল রানা (৪৩) ও ছেলের স্ত্রী সোনিয়া (৩৭)। তারা একই এলাকার বাসিন্দা।

নিহতের ভাতিজা আমিনুর জানান, পালক ওই ছেলে আমার কাকার জমিতেই বাড়ি করে পরিবারসহ থাকতো। তবে তাকে কোন জমি লিখে দেয়া ছিল না। কিছুদিন আগে সে আরেকটা ঘর তোলার জন্য বাড়ির পাশে আরেকটা জমিতে খোড়াখুড়ি করতে গেলে কাকা তাকে নিষেধ করে। এসব নিয়ে বাবা-ছেলের মধ্যে ঝগড়াঝাটি চলছিলো। পরে আমরা সবাইকে নিয়ে বসে ওই বাড়ির জমিটা তাকে লিখে দিতে বললে কাকা রাজি হয়। তবে আজ সকালে সোহেল আবার ঘরের কাজ শুরু করে। যেখান থেকে খোঁড়া শুরু করে তাতে কাকার বাড়ির রাস্তা বন্ধ হয়ে যেতো। এজন্য কাকা সেখানে বাঁধা দেয়। পরে তর্কাতর্কি শুরু হলে একপর্যায়ে সোহেল তার বাবার ঘাড়ে শাবল দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। শুকুর আলী নামে এক প্রতিবেশী বলেন, ঘর তোলার জন্য সে যেখান থেকে খোঁড়া শুরু করেছিল তাতে বাবার বাড়ির চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে যেতো। সেজন্য বাধা দিতে গেলে সোহেল তার বাবাকে শাবল দিয়ে কোপ দেয়। এতেই তার বাবা মারা যায়।

কাওয়ালীপাড়া বাজার তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রাসেল মোল্লা বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামিদের আটক করা হয়েছে। সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এবিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।