আশুলিয়ায় ঝুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে ব‍্যাপক সংঘর্ষ।

0
17

মোঃসোহান আহমেদ সানাউল

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

আশুলিয়ায় ঝুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে ব‍্যাপক সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় দুই পক্ষেরই অন্তত ৪ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার (২ এপ্রিল) বিকেল সোয়া তিনটার দিকে আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের পূর্ব নরসিংহপুর এলাকায় এঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন ইয়ারপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার আবু সামা মৃধা।সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ থানা আলমপুর গ্রামের সানোয়ার হোসেনের ছেলে সোহেল (২৫),সহ বাকি দুজনের নাম ঠিকানা জানা যায়নি তাদেরকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এব‍্যাপারে এলাকাবাসী জানান, আঞ্জুমান গার্মেন্টস লিমিটেড কারখানার ঝুট নিয়ে আবু সামা মৃধা ও তার ভাতিজা বাহাদুর মৃধার সাথে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরে আবু সামা মৃধার অফিস ভাঙ্গচুর করে বাহাদুরের লোকজন আর বাহাদুরের অফিস ভাঙ্গচুর করে আবু সামার লোকজন। আধিপত্য বিস্তারে কোন এক পক্ষ কয়েকটি চকলেট বোমা নিক্ষেপ করেন। এঘটনায় দুই পক্ষ থেকে ৪ জনের মত আহত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ফার্ণিচার ব্যবসায়ী রিপন বলেন, আমি আমার দোকানেই ছিলাম এসময় হঠাৎ বাহাদুর ও তার সহযোগীরা অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় বাহাদুরের সহযোগীরা পিস্তল বের করে ৪ টি ফায়ার করেন। আমি ভয়ে দোকানে ঢুকে পরি।

আহত আবু সামা মৃধার মেয়ে স্বর্ণালী জানান, আমার বাবা সকালে সাভার উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের অফিসে যান।

সেখান থেকে বিকেলে ফিরে অফিসে আসলে বাহাদুর ও তার সহযোগীরা বাবার ওপর হামলা চালায়। এসময় প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙ্গচুর করেন তারা। বাবা অতর্কিত হামলায় বাবা আহত হয়েছেন পরে তাকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।

এব্যাপারে বাহাদুর মৃধা বলেন, আমি ওই কারখানায় চুক্তিপত্র করে ঝুটের ব্যবসা করি। কারখানার মালিক আমাকে চুক্তি অনুযায়ী আগামী ৫ বছর ঝুট দেওয়ার কথা।

কিন্তু আবু সামা মৃধা তার লোকজন নিয়ে আমাকে ঝুট নিতে বাধা দিয়ে আসছিল। আজ আমরা কারখানায় যেতেই আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমরা ভয়ে কারখানার ভিতরে প্রবেশ করি। আমাদের দুটি মোটরসাইকেলও ভাঙ্গচুর করে তারা।

এব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল আউয়াল বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।