গৌরনদী – আগৈলজাড়ায় গনটিকার উদ্বোধন।

0
4
খোকন হাওলাদার 
বরিশাল প্রতিনিধিঃ
মহামারি কোভিড-১৯ সংক্রমন রোধে সরকারে ঘোষণা অনুযাযি গণটিকা প্রদান কর্মসূচির অংশ হিসেবে বরিশালের গৌরনদী ও আগৈলঝাড়ায় করোনার শতভাগ টিকা নিশ্চিত করতে ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে শনিবার সকাল নয়টা থেকে গণটিকা প্রদান শুরু হয়েছে।

শনিবার (০৭ আগস্ট) সকালে গৈলা মডেল ইউনিয়নের সেরাল বহুমুখি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শনের মধ্য দিয়ে উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের ৫টি গণটিকা কেন্দ্র পরিদর্শণ করেছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবুল হাশেম, ইউএইচএএফপিও ডা. বখতিয়ার আল মামুন, ওসি (তদন্ত) মো. মাজহারুল ইসলাম।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ব্যবস্থপনায় ও ইউনিয়ন পরিষদের সার্বিক সহযোগীতায় সরকারের কোভিড-১৯ গণটিকা প্রদান কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রধান ডা. বখতিয়ার আল মামুন জানান, একজন চিকিৎসকের তত্বাবধানে স্বাস্থ্য কর্মীদের মাধ্যমে আইন শৃংখলা বাহিনীর সহযোগীতায় উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ৩ হাজার নারী পুরুষকে সিনে ফার্মার এই টিকা প্রদানের লক্ষমাত্র নির্ধারণ করে গণটিকা প্রদান শুরু হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রতিটি ইউনিয়নের ৩টি করে ওয়ার্ড নির্বাচন করে শনিবার থেকে টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সংশ্লিষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের ওয়ার্ডসহ পাশ^বর্তি আরও দুটি ওয়ার্ড নিয়ে গণটিকা কার্যক্রমে গৈলা মডেল ইউনিয়নের সেরাল বহুমুখি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৭.৮.৯নং ওয়ার্ড, রাজিহার ইউনিয়নের বাশাইল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৩,৪,৯নং ওয়ার্ড, বাকাল ইউনিয়নের বাকাল ইউনিয়ন পরিষদের ১,২,৩নং ওয়ার্ড, বাগধা ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সে ১,৩,৪নং ওয়ার্ড, রতপুর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সে ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের জনগনকে টিকা প্রদান করা হচ্ছে। প্রতি ওয়ার্ডে ২শজন নারী পুরুষ টিকা গ্রহনের সুযোগ পাচ্ছেন।

অন্যদিকে গৌরনদীর পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের ১,২,৩নং ওয়ার্ডে গণটিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়নে মাঠে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব. বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস, সহকারী কমিশনার ভূমি মো. আরিফুল ইসলাম প্রিন্স, গৌরনদী মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আফজাল হোসেন সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রধানরা কঠোর নজরদারি মধ্যেই সুষ্ঠু সুন্দর পরিবেশে চলছে টিকাদান।

কোন প্রকার পূর্ব রেজিষ্ট্রেশন ছাড়াই এসকল টিকাদান কেন্দ্রে জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে গেলে সহজেই টিকা পাচ্ছেন স্থানীয়রা। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে নারী পুরুষের দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে। বয়োবৃদ্ধদেরকে বিভিন্ন যানবাহনে করে টিকা দিতে কেন্দ্রে নিয়ে এসেছেন তাদের স্বজনেরা। সেক্ষেত্রে বয়স্কদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে।

কোন পূর্ব রেজিষ্ট্রেশন ছাড়াই বাড়ির কাছাকাছি কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে সহজেই করোনার টিকা পাওয়ায় সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন টিকা গ্রহনকারীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here