আশুলিয়ায় দেওয়াল ধসে নারী শ্রমিকের মৃত্যু,টাকার বিনিময়ে শান্তি চুক্তি।

0
30

মোঃসোহান আহমেদ সানাউল

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

সাভারের আশুলিয়ায় পারভীন বেগম প্রিয়া (২৪) নামে এক নারী পোশাক শ্রমিকের দেওয়াল ধসে মৃত্যু হয়েছে।

১৬ জুন বুধবার সকাল ৭টায় আশুলিয়া শিমুলতলা এলাকার রতন খাঁ ভাড়াটিয়া পারভীন আক্তার প্রিয়া তার কর্মসংস্থান প্রাইম ক্যাপ বিডি লিমিটেডে যাওয়ার পথে মুক্তার মীরের বাউন্ডারি করা দেওয়াল চাপায় নিহত হয়েছেন।

নিহত পারভীন বেগম প্রিয়া (২৪) তিনি কুড়িগ্রাম জেলার বুরুঙ্গামারী থানার বোটহাট গ্রামের জামাল উদ্দিনের মেয়ে।

স্থানীয়রা জানান, সকালে অনেক জোরে শব্দ শুনে আমাদের সবার ঘুম ভেঙে যায়। পরে বাহিরে এসে আমরা দেখতে পাই যে মুক্তার মীরের বাউন্ডারি করা মেসার্স মেহেদী এন্টারপ্রাইজের অধিক মাত্রাই ইট-বালি রাখায় দেওয়াল ধসে পড়ে। এরপরে দেখি দেওয়ালের নিচে কেউ যেনো চাপা পড়ে আছে। সেখানকার ট্রাকের ড্রাইভার ও ম্যানেজার দেওয়ালের নিচে চাপা পড়া পারভীন বেগম প্রিয়াকে টেনে বের করে স্থানীয় নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তবরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডেপুটি ম্যানেজার হারুনুর রশীদ বলেন, আমাদের এই খানে সকাল ৭টা ৫০ মিমিটে প্রিয়া নামে একজন নারী পোশাক শ্রমিককে নিয়ে আসা হয়।

তিনি জানান, ওই নারীর অবস্থা খুবই আশঙ্কা জনক ও তার একটা পা পুড়োটা ভাঙ্গা ছিলো এবং বুকে চাপা লাগার কারনেই তার মৃত্যু হয়। এরপর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থানায় পুলিশকে অবহিত করেছি।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক এস আই তানিম বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। নিহত পারভীন বেগম প্রিয়া দেওয়ালের নিচে চাপা পড়ে নি:শ্বাস বন্ধ হওয়ার কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে। নিহতের স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানান মামলা কিনবা ময়নাতদন্ত করবে না। পারবিন বেগমের আপন ভাই, বোন জামাই, মুক্তার মীর,মেহেদী এন্টারপ্রাইজ এর পক্ষ থেকে সানোয়ার মীর, দুলাল মীর এর ছেলে ইমরান মীর মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে শান্তি চুক্তি করে লাশ হাসপাতাল থেকে গ্রামের বাড়ি নিয়ে চলে যান।এস আই তানিম কে বললে তিনি বলেন আমে দুধে মিলে গেলে আমাদের কিছু করার নেই। সাধারণ জনগণের সাথে কথা বললে তারা বলেন আর যাতে কারো এভাবে মৃত্যু না হয়। আর যাদের ভুলের কারনে এই মৃত্যু হয়েছে আমরা তাদের শাস্তি চাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here