সাভারের আশুলিয়ায় অলিতে গলিতে় নামে-বেনামে গড়ে উঠেছে ল চেম্বার।

0
90

বাংলার রূপ,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সাভারের আশুলিয়ায় অলিতে গলিতে় নামে-বেনামে ব্যাঙের ছাতার মত ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে বিভিন্ন ল চেম্বার। অপ্রাপ্ত বয়সের ছেলে মেয়ে বিয়ের বয়স না হলেও, তারা বেছে নেন নোটারি পাবলিক। এতে করে রেজিস্টার প্রাপ্ত কাজীরা নানান সমস্যায় পড়েন। বিভিন্ন সময় দেখা যায় প্রেমের সূত্র ধরে একজন ছেলে- মেয়ে তাদের বিয়ের বয়স না হলেও তারা বাধ্য হয়ে এসকল ল চেম্বারে গিয়ে হাজির হন। সেই সময় কিছু অসৎ মানুষ তাদের স্বার্থ হাসিল করার জন্য এসকল ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে ,নোটারি পাবলিকের পরামর্শ দিয়ে থাকেন।তারা বাধ্য হয়ে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে অবৈধভাবে বিয়ে করেন। এতে করে দেখা যায় দেশে বাল্যবিবাহ অনেকাংশে বৃদ্ধি পায়। কোন ছেলে মেয়ের বিয়ের বয়স না হলে, যদি তারা কোন রেজিস্টার প্রাপ্ত কাজীর কাছে গিয়ে তাদের সমস্যার কথা বলেন, এতে করে কাজী তাদের সঠিক পরামর্শ দিয়ে ফিরিয়ে দেন।কাজী অফিসের আশপাশে অনেক রকম দালাল ঘোরাফেরা করে। ঠিক তখনই তারা ঐসকল ছেলেমেয়েদের নানান ভাবে বুঝিয়ে নিয়ে যান নোটারি পাবলিক করতে। তখনই বাধ্য হয়ে এ সকল ছেলে মেয়েরা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে অবৈধভাবে বিয়ে করেন। যখনই একজন ছেলে মেয়ে ভুয়া নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বিয়েতে আবদ্ধ হন, পরবর্তীতে সংসারে কোন প্রকার সমস্যা হলে তারা তাদের কাবিননামা খুঁজে পান না। কারণ তাদের বিয়েটা ছিল অবৈধ। এতে করে নানান সমস্যার মধ্যে পড়তে হয় উভয় পক্ষকে। সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় অকালে ঝরে পড়ে অনেক তরুন তরুনীর প্রাণ।সড়কের দু’পাশে লক্ষ্য করলে দেখা যায় বিভিন্ন রঙের নামসর্বস্ব ল চেম্বার এর সাইনবোর্ড। যার ফলে রেজিস্টার প্রাপ্ত কাজীদের অনেক সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। এবং রেজিস্টার প্রাপ্ত কাজীরা অনেক হয়রানির শিকার হন। দেশে বাল্যবিবাহ ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে।বাল্যবিবাহ রোধ করার জন্য সরকার বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ মানুষকে দিয়ে থাকেন।এই মুহূর্তে প্রশাসনের দৃষ্টি দেওয়া উচিত এতে করে দেখা যাবে দেশে বাল্যবিবাহ অনেকাংশে কমে গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here