প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা বাস্তবায়ন ও বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে,নান্দাইলে স্বাস্থ্য কর্মীদের কর্ম বিরতি।

0
5

 

তৌহিদুল ইসলাম সরকার

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ

পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী আজ ২৬ নভেম্বর /২০২০ ইং হইতে মাঠ পর্যায়ে কর্মরত স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারী গণ বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে কর্ম বিরতি পালন শুরু করেন, দাবী বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত এ কর্ম বিরতি চলবে।।

উল্লেখ্য যে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৮ সালের ৬ ডিসেম্বর স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের এক মহাসমাবেশে বেতন বৈষম্য নিরসনের ঘোষনা দিয়েছিলেন তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি এবং পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২ জানুয়ারী তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্য কর্মীদের দাবিগুলো মেনে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য কমিটি গঠন করলেও তা আলোর মুখ দেখে নি, সবশেষে ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, স্বাস্থ্য সচিব ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী দাবিসমূহ মেনে নিয়ে লিখিত সমঝোতা পত্রে স্বাক্ষর করলেও তা অদ্যাবধি কোন অগ্রগতি হয়নি।।

দাবীসমূহ হল ঃ নিয়োগবিধি সংশোধনসহ ক্রমানুসারে স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন গ্রেড যথাক্রমে ১১, ১২ ও ১৩ তম গ্রেডে উন্নীতকরণ। এবং টেকনিক্যাল পদমর্যাদা সহ টেকনিক্যাল স্কেল প্রদান।।

২০০৪ সালেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও স্বাস্থ্য সহকারী একই গ্রেডে ছিল এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকগণ স্বাস্থ্য সহকারীদের এক গ্রেড নীচে ছিল।। বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ১১ তম গ্রেড ও সহকারি শিক্ষক ১৩ তম গ্রেডে উন্নীত হলে ও স্বাস্থ্য সহকারীগণ ১৬ তম গ্রেডেই আছেন। ফলে স্বাস্থ্য সহকারীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।।

জন্মের সাথে সাথেই শিশুদের বিসিজি টিকা স্বাস্থ্য সহকারী গণই দিয়ে থাকেন কোন ডিপ্লোমা সনদ ছাড়াই।।

টিকাদান কর্মসূচির মাধ্যমে স্বাস্থ্য সহকারীগণ বর্তমানে ১০ টি মারাত্নক সংক্রামক রোগের ( শিশুদের যক্ষা, পোলিও,ধনুষ্টংকার, হুপিংকাশি, ডিপথেরিয়া, হেপাটাইটিস -বি,হিমোফাইলাস ইনফ্লুয়েঞ্জা, নিউমোনিয়া ও হাম-রুবেলা) টিকা প্রদান করেন। স্বাস্থ্য সহকারীরাই ২০১৩ সালে ২৫ জানুয়ারী ৯ মাস ১৫ বছর বযসী ৫ কোটি ২০ লাখ শিশুকে এক ডোজ হাম-রুবেলা টিকা সফল ভাবে প্রদান করেন।।

তৃণমূল এ স্বাস্থ্য কর্মীদের কাজের অর্জনেই বাংলাদেশ আজ টিকাদানে বিশ্ব রোল মডেলে পরিনত হয়েছে এবং সরকার প্রধান পেয়েছে ৭ টি পুরস্কার। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল এলায়েন্স ফর ভ্যাক্সিনেশন এন্ড ইমুনাইজেশন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যাকসিন হিরো উপাধিতে ভূষিত করেন।। এ সন্মাননা গুলো অর্জনের একমাত্র কারিগর স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারী গণ।।

তাছাড়া এ মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে সারাদেশে যেখানে জনসমাগম এড়িয়ে চলতে সরকার নির্দেশনা দিয়েছিলেন এবং ঘোষনা করেছিলেন সাধারণ ছুটি। আর সে অবস্থায় করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে থেকে জনগণকে স্বাস্থ্য শিক্ষা সহ স্বাস্থ্য সহকারীরা টিকাদান করেন এবং করোনা শুরুর দিকে স্বাস্থ্য সহকারীরা বিদেশ ফেরতদের তথ্য সংগ্রহ করে স্ব স্ব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করেন।।

তাই দাবি না মানা পর্যন্ত-আগামী ৫ ডিসেম্বর হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন সহ দেশের ১ লক্ষ ২০ হাজার আউটরিচ রুটিন টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here