রৌমারী সীমান্তে চোরাকারবারে বাঁধা দেওয়ায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি।।

0
116

এলাহি শাহরিয়ার নাজিম

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের হরিণধরা সীমান্তে চোরাকারবারিদের কাজে বাঁধা দেওয়ায় এ.কে.এম হাসানুজ্জামান নামের স্থানীয় এক সাংবাদিককে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে ওই সাংবাদিক বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

হরিণধরা গ্রামের এ.কে.এম হাসানুজ্জামান দীর্ঘদিন থেকে ‘দৈনিক বাংলাদেশের খবর’পত্রিকার রৌমারী উপজেলা প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করে আসছেন। তিনি উপজেলার দাঁতভাঙ্গা সীমান্ত এলাকা হরিণধরা গ্রামের শামছুজ্জামানের ছেলে।

অভিযোগে জানা যায়, গত ১০ অক্টোবর শনিবার সন্ধ্যার দিকে তার বাড়ির উঠানে আড়কির বাঁশ(সীমান্ত দিয়ে গরু পারাপারে ব্যবহৃত)রেখে যান চোরাকারবারিরা। পরে খবর পেয়ে দাঁতভাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা এসে বাঁশগুলো উদ্ধার করে নিয়ে যান। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে স্থানীয় চিহ্নিত চোরাকারবারি হরিণধরা গ্রামের মৃত আজগর আলীর ছেলে রাজু মিয়া, একই এলাকার মৃত শহিদার রহমানের ছেলে ইউনুছ আলী ও নুরবক্ত মন্ডলের ছেলে মহিউদ্দিন।
চোরাকারবারি মহিউদ্দিন ও ইউনুছ প্রকাশ্যে ওই সাংবাদিককে হুমকি দিয়ে বলেন, ‘তুই বিজিবিকে দিয়ে আমাদের আড়কির বাঁশ ধরে দিয়েছিস কেনো? তোকে মেরে লাশ সীমান্তের ওপারে ফেলে দেবো।’এ ছাড়াও রাজু নামের এক চোরাকারবারি হুমকি দিয়ে বলেন, তোকে এলাকায় শান্তিতে থাকতে দেবো না, গ্রাম ছাড়া করে ছাড়বো।
এঘটনার জের ধরে গত ১২ অক্টোবর রাতে ওই সাংবাদিকের বাড়ির সিকিউরিটি বাল্ব ভেঙ্গে গাছ থেকে নারিকেল ও জামবুড়া চুরি করে নিয়ে যায়। ৬ নভেম্বর মাঝরাতে ওই সাংবাদিকের বাড়িতে লাগানো ৪০টি পেঁপে ও ৫টি আমগাছ ও কেটে ফেলে চোরাকারবারিরা।

অভিযোগের বিষয়ে রৌমারী থানার ওসি ইমতিয়াজ কবির বলেন, এঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here