চট্টগ্রামের গ্যাসের রাইজার বিস্ফোরণে নিহত ৭ আহত ২৫

0
166

 

 

আল-আমিন, চট্টগ্রাম।

 

চট্টগ্রামের পাথরঘাটায় গ্যাস লাইনের রাইজার বিস্ফোরণে ৫ তলা বাড়ির নিচতলার দেয়াল ধসে ৭ জন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন প্রায় ২৫ জন।

 

 

আজ রোববার সকাল পৌনে নয়টার দিকে পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডের  বড়ুয়া ভবনের নিচতলায় এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

 ঘটনার পরপরই ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের সাথে স্থানীয় লোকজন সহায়তায় আহতদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।পরে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক সাত জনকে মৃত ঘোষণা করেন।এবং আহতরা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। এ সময় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সহকারি পরিচালক ডাক্তার মোঃ হুমায়ুন কবির বাংলার রূপ নিউজ টোয়েন্টিফোর কে জানান, আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

 

 

দুর্ঘটনার পর সকালে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরিস্থিতি ঘুরে দেখার পর তিনি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এ জে এম শরিফুল হাসান কে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করার কথা সাংবাদিকদের বলেন।

 

 

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এ জে এম শরিফুল হাসানকে প্রধান করে গঠিত এই কমিটিতে ফায়ার সার্ভিস, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) এবং স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর সদস্য হিসেবে রয়েছেন বলে ইলিয়াস  হোসেন জানান।

 

 

এ সময় জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন সাংবাদিকদের আরও জানান,নিহতদের পরিবারকে সৎকারের জন্য জনপ্রতি ২০ হাজার টাকা করে সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা করেন। এবং আহতদের চিকিৎসা দায়ভার সিটি কর্পোরেশন ও চট্টগ্রাম  জেলা প্রশাসন বহন করবে তিনি আমাদের জানান।

 

 

এদিকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাসির  উদ্দিন  সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং সাংবাদিকদের জানান এই দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এসময় ঘটনার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি আহতদের বরাত দিয়ে জানান , সকালবেলা বাসার ভিতরে অর্পিতা বড়ুয়া নামে এক কিশোরী পূজার ঘরে দেয়াসলাই  জালালে এই বিস্ফোরণ ঘটে বলে ধারণা করা হচ্ছে।গ্যাস লাইনের পাইপ লিক থাকার কারণে ওই কক্ষটিতে গ্যাসে ভর্তি হয়ে থাকতে পারে। তাই আগুনের সংস্পর্শে পাওয়ার সাথে সাথে এই বিস্ফোরণ ঘটে থাকতে পারে।

 

 

এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে আরো একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।এই কমিটিতে প্রধান হিসেবে নেতৃত্ব দিবেন চট্টগ্রাম দক্ষিণের পুলিশের উপ-কমিশনার এস এম মেহেদী হাসান। এ কমিটিতে আরো থাকছেন  নগরের  বিশেষ শাখার উপ-কমিশনার মনজুর মোরশেদ এবং কোতয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা।

 

 

এ সময় নোবেল চাকমা বাংলার রূপ news24 কে জানান, আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত শেষ করে  প্রতিবেদন জমা দেয়ার চেষ্টা করব।

 

 

ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ কর্মকর্তাদের ধারণা, পাইপ লাইনের ত্রুটি থেকে হয়ত ওই বাসায় গ্যাস জমে গিয়েছিল। নিচতলার বাসিন্দারা সকালে পূজার ঘরে ম্যাচ জ্বালানোর সময় বিস্ফোরণ ঘটে থাকতে পারে আশঙ্কা করা হচ্ছে ।

 

 

এদিকে চট্টগ্রামের গ্যাস লাইন  বিস্ফোরণের ঘটনায় জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ দুঃখ প্রকাশ করেন।এ সময় তিনি আমাদের জানান, এই ধরনের দুর্ঘটনার জন্য মূলত সরবরাহকারী কোম্পানিগুলো দায়ী।তিনি বলেন কোম্পানিগুলোর কাজের গাফিলতিতে প্রায়ই এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here