রৌমারীতে হত্যা মামলার বাদীকে তুলে নিয়ে রাতভর নির্যাতন।।

0
131
রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের রৌমারীতে থানায় যাওয়ার পথে একটি হত্যা মামলার বাদীকে তুলে নিয়ে রাতভর নির্যাতন করে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা।শনিবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের রৌমারী-ঢাকা মহাসড়কের ঝগড়ারচর নামক এলাকা থেকে ওই যুবককে তুলে নিয়ে অমানবিক নির্যাতন চালিয়ে নেওয়া হয় সাদা কাগজে স্বাক্ষর। পরে অতিরিক্ত নির্যাতানে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লক্সে ভর্তি হন ওই যুবক। এভাবে তুলে নিয়ে নির্যাতনের ঘটনায় গোটা এলাকায় সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। নির্যাতিত শেখ
ফরিদ (২৩) উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের রফিকুল ইসলামের ছেলে। শেখ ফরিদ তার বাবা রফিকুল ইসলাম হত্যা মামলার বাদী।
রোববার দুপুরে রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে গেলে নির্যাতনের স্বীকার শেখ ফরিদ অভিযোগ করে বলেন, শনিবার সন্ধ্যার দিকে আমার বাবার হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও)এসআই তুহিন মিয়ার ডাকে রৌমারী
থানায় যাচ্ছিলাম। রৌমারী-ঢাকা মহাসড়কের ঝগড়ারচর নামক এলাকায় পৌছলে ওৎপেতে থাকা দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের খেতারচর গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে সেলিম (৩৫), একই ইউনিয়নের আমবাড়ি গ্রামের মনিরুজ্জামানের ছেলে হাসান (৩০), দাঁতভাঙ্গা গ্রামের নুরুল হকের ছেলে সবুজ মিয়া (৪০), শৌলমারী ইউনিয়নের বড়াইকান্দি গ্রামের সমশের আলীর ছেলে চাঁন মিয়া (৫০) ও একই এলাকার শহর আলীর ছেলে রহিম বাদশাহ(৪৫) আমাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে উপজেলার রৌমারী গ্রামের একটি বাড়িতে
নিয়ে সারারাত শারীরিক নির্যাতন চালায়।এক পর্যায়ে তারা আমার কাছে জোর করে একটি সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে ছেড়ে দেয়। পরে আহতাবস্থায় রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি হই।
শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন থাকার কথা স্বীকার করে রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক মোক্তারুল ইসলাম সেলিম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here