রূপগঞ্জে বৃদ্ধাকে ছুরিকাঘাত পরে জবাই করে খুন।

0
31
খোরশেদ আলম
রূপগঞ্জ,নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সাফিয়া বেগম (৭৮) নামে এক বৃদ্ধাকে জবাই ও বুকে ছুড়ি মেরে খুনের ঘটনা ঘটেছে । শুক্রবার(২২ জানুয়ারি ) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার রূপগঞ্জ ইউনিয়নের জাঙ্গীর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত বৃদ্ধা সাফিয়া বেগম উপজেলার রূপগঞ্জ ইউনিয়নের জাঙ্গীর এলাকার শাহজালাল ভুইয়ার স্ত্রী। পরিবারের ধারনা, সঙ্গে থাকা স্বর্ণালংকার ছিনতাই করতে গিয়ে মাদকসেবী ও জুয়ারীরা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে।
নিহত সাফিয়া বেগমের নাতনি জামাই জহিরুল ইসলাম জানান, তিনি সাফিয়া বেগমের একমাত্র মেয়ে ফেরদৌসি বেগমের মেয়ের ঘরে নাতনি সোনিয়া আক্তারের জামাই। তার বৃদ্ধ নানা শশুর শাহজালাল ভুইয়া ও নানী শাশুরী সাফিয়া বেগম জাঙ্গীর গ্রামের নিজের বাড়িতে একটি মাটির ঘরে বসবাস করতেন। সাফিয়া বেগমের গলায় চেইন, হাতে চুড়ি ও কানে দুল পড়নে ছিলো। দুপুর দেড়টার দিকে দুর্বৃত্তরা সাফিয়া বেগমকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে ও বুকে ছুড়ি মেরে গুরুতর আহত করে। পরে আশ-পাশের লোকজন দেখতে পেয়ে আতচিৎকার শুরু করে। এসময় পরিবারের সদস্যরা সাফিয়া বেগমকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে বসুন্ধরা এ্যাপোলো হসপিটালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে।
জহিরুল ইসলাম আরো জানান, নানা শশুর শাহজালাল ভুইয়া ও নানী শাশুরী সাফিয়া বেগমের সঙ্গে এলাকার কারো কোন দিন বিরোধ ছিলো না। বাড়ির আশ-পাশে মাদকসেবী ও জুয়ারীদের আনাগোনা বেশি। সাফিয়া বেগমের গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন ও কানের দুল নেই। তবে, হাতের চুড়ি পাওয়া গেছে। পরিবারের লোকজন ধারনা করছে, মাদকসেবী ও জুয়ারীরা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে।
এদিকে, একমাত্র কন্যা ফেরদৌসি বেগম ও স্বামী বৃদ্ধ শাহজালাল ভুইয়া সাফিয়া বেগমকে হারিয়ে প্রায় পাগলের মতো হয়ে গেছে। যারা এ ধরনের অপরাধ করেছে, তাদের চিহ্নিত করে এবং গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন পরিবারের লোকজন।
লাশের সুরতহাল করে রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মাহাবুব বলেন, লাশ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদির বলেন, যে কোন মুল্যে হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করে এবং হত্যাকান্ডের ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here