পিতাকে বাঁচাতে জবি শিক্ষার্থীর সাহায্যের আবেদন।।

0
5

এলাহী শাহরিয়ার নাজিম।।

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি।।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত দর্শন বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ফরহাদ রেজা। ঢাকায় টিউশনি করে নিজের পড়ালেকার খরচ চালান। ছোট বোন গ্রামীণ ব্যাংকের ঋণের টাকায় নার্সিং এ ২য় বর্ষে ও আরেকজন অষ্টম শ্রেণিতে পড়েন। কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার নয়ারহাট ইউনিয়নের চর খেদাইমারি গ্রামে তার বাড়ি।
২৪শে মার্চে ফরহাদেও বাবা রাশেদুল ইসলাম (৬০) টিউমার ক্যান্সার ধরা পরে। অভাবের সংসারে এ যেন মরার ওপর খঁড়া। ক্যান্সারের সংবাদ শুনে কিভাবে অপারেশন ও চিকিৎসার টাকা সংগ্রহ করবে তা বুঝে উঠার আগেই অবস্থার অবনতি হয়। জমানো প্রায় ৭০ হাজার টাকা ক্যান্সারের রিপোর্ট দেয়ার আগেই শেষ হয়। পরে অবস্থার আরও অবনতি হলে গত মাসের ২৮এপ্রিল সিরাজগঞ্জের খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। চিকিৎসকরা বলছেন অপারেশন ও ঔষুধ ক্রয়ের জন্য প্রায় ৪ লক্ষ টাকা লাগবে।
ব্রহ্মপ‚ত্রের চরে নিজ নামিয় শেষ সম্বল ১০ কাঠা জমি বিক্রি করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। অপারেশনের আগেই সেখান থেকে ৩৫ হাজার টাকা শেষ হয়। যথাসময়ের মধ্যে অপারেশন না করলে রোগীর অবস্থা আরও খারাপ হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।
চিকিৎসক বলেছেন, অপারেশন ও ঔষুধ ক্রয়ের জন্য প্রায় ৪ লক্ষ টাকা লাগবে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফরহাদ রেজা জানান, পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি বাবা। আমরা নিজেদের খরচে পড়ালেখা করি। বাবা সংসার চালান। এখন বাবার এ অবস্থায় দুশ্চিন্তায় আছি। অভাবের সংসারের শেষ সম্বলটুকু বিক্রি করে বাবার চিকিৎসার জন্য এনেছি। যা অপারেশনের আগেই খরচ হয়েছে। বাবার অপারেশন, কেমোথেরাপি, ঔষধ ও অন্যান্য চিকিৎসার খরছে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা লাগবে। এখন সমাজের বিত্তশালীদের সাহায্য ছাড়া বাবার চিকিৎসা করানো মোটেই সম্ভব না। এখন আপনাদের সাহায্যই আমার বাবার চিকিৎসার শেষ ভরসা।
মানুষ মানুষের জন্য, সমাজের দানশীল, বিত্তবানদের প্রতি বিনীত নিবেদন একজন মেধাবী শিক্ষার্থীর বাবাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা. নুর আলম সিদ্দিকী, এম এস এ ১৩০২৬
ইসলামি ব্যাংক, এলিফ্যান্ট রোড শাখা ঢাকা। ফরহাদ (পার্সোনাল) বিকাশ নং-০১৯১০৫৬৭২৩৩, ফরহাদের বন্ধু মুরাদ, ১২ ব্যাচ (পার্সোনাল) ০১৭৮৮৬২৯৫৮২

এলাহি শাহরিয়ার নাজিম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here